1. admin@bd24voice.com : BD24VOICE.COM : BD24 VOICE
  2. bd24voice@hotmail.com : BD 24 VOICE : BD 24 VOICE
  3. tusher719@gmail.com : BD 24 VOICE : BD 24 VOICE
বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮:২১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের চলমান কাজ শেষ হওয়ার পর পরবর্তী কাজ পাবে ঘাসের চাষ শিখতে ৩২ কর্মকর্তার বিদেশ সফর প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে কিশোরগঞ্জ জেলা কৃষক লীগের আনন্দ শোভাযাত্রা কিশোরগঞ্জ প্রেসক্লাব থেকে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ, দায়িত্বে জেলা প্রশাসক অপমানের বিচার না পেলে আত্মহত্যার হুমকি দুই মুক্তিযোদ্ধার কিশোরগঞ্জে কটিয়াদী পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাইডেনকে মানতে নারাজ ভ্লাদিমির পুতিন কিশোরগঞ্জে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ ঢাকা মহানগর পুলিশের মাদকাসক্ত ১০ পুলিশ সদস্যকে স্থায়ীভাবে চাকরীচ্যুত করা হয়েছে এক বাংলাদেশির বিরুদ্ধে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের ৫০ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণ মামলা

প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্স বৃদ্ধি, সেপ্টেম্বরে ২১৫ কোটি ডলার এসেছে

নিজেস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৪৫ বার পড়া হয়েছে

প্রবাসীরা করোনাভাইরাসের মধ্যেই অর্থ পাঠানো বাড়িয়ে দিয়েছেন যার ফলে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে ইতিবাচক অবদান রেখে যাচ্ছেন সবচেয়ে বেশি। আগের যেকোনো সেপ্টেম্বরের তুলনায় গত মাসে প্রবাসীরা দেশে বেশি অর্থ পাঠিয়েছেন। অর্থ পাঠানোর বৃদ্ধি পাওয়ায় বেড়েছে বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ।

ভাইরাসের মহামারী প্রাদুর্ভাব এর মধ্যেই সেপ্টেম্বরে প্রবাসীরা পাঠিয়েছেন ২১৫ কোটি ডলার। গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে প্রবাসীরা পাঠিয়েছিল ১৪৭ কোটি ডলার। ফলে গত মাসে প্রবাসী আয় ৪৬ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে।

প্রবাসীদের কষ্টার্জিত আয়ের মাধ্যমে পাচার করা টাকা ফেরত আসছে বলে ধারণা বিশেষজ্ঞদের। যদিও প্রবাসী আয় বৃদ্ধি পাওয়ার পেছনে ভিন্ন কারণ তুলে ধরেছেন ব্যাংকারা।

রাষ্ট্র মালিকানাধীন রূপালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ওবায়দুল্লাহ আল মাসুদ গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, উন্নত দেশে যাওয়া অনেক বাংলাদেশের মোহভঙ্গ হয়েছে। অনেকের আয় কমে গেছে আবার অনেকেই হতাশ হয়েছেন স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়ে। যার ফলে অনেকেই দেশে ফেরার প্রস্তুতি শুরু করেছেন। এজন্যই তারা সব জমানো টাকা পাঠিয়ে দিচ্ছেন। অন্যদিকে করোনার মধ্যে অনেকের নিকট আত্মীয়দের দান করেছেন। এসব কারণেই প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্স বৃদ্ধি পেয়েছে।

জানা গিয়েছে, গত জুলাই মাসে ২৫৯ কোটি ডলারের আয় এসেছিল। আর আগস্টে এসেছিল ১৯৬ কোটি ডলার। এত প্রবাসী আয় আসায় ব্যাংকগুলোতে ডলারের উদ্বৃত্ত দেখা দিয়েছে। এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক ডলার কিনে দাম স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করছে। এতে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বেড়ে ৩ হাজার ৯০০ কোটি ডলারের বেশি হয়েছে। আর ডলার কিনে বাংলাদেশ ব্যাংক টাকা দেওয়ায় অনেক ব্যাংকের হাতে অতিরিক্ত টাকা জমে গেছে। ঝুঁকি বিবেচনায় ব্যাংকগুলো বিনিয়োগও করছে না। সরকার ও অন্য ব্যাংকের কাছে টাকা রেখে আয়ের চিন্তা করছে।

উল্লেখ্য বাংলাদেশের অর্থনীতিতে সবচেয়ে বেশি অবদান রেখে চলেছেন বিদেশে কর্মরত প্রবাসীরা। তাদের কষ্টার্জিত অর্থ দেশে পাঠানো রেমিটেন্সের কারণেই বছর রয়েছে অর্থনীতির চাকা। বর্তমান মহামারী বিপর্যয়ে বিদেশে কর্মরত অনেক প্রবাসী কর্মহীন হওয়ার ঝুঁকিতে আছেন। এই ঝুঁকি যদি বাস্তবায়িত হয় তাহলে হয়তো বাংলাদেশের অর্থনীতিতে বিরূপ প্রভাব পড়বে যা হয়তো অর্থনীতি সচল চাকা থামিয়ে দিতে পারে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় ইন্টেল ওয়েব