1. admin@bd24voice.com : BD24VOICE.COM : BD24 VOICE
  2. bd24voice@hotmail.com : BD 24 VOICE : BD 24 VOICE
  3. tusher719@gmail.com : BD 24 VOICE : BD 24 VOICE
বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮:৪৪ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের চলমান কাজ শেষ হওয়ার পর পরবর্তী কাজ পাবে ঘাসের চাষ শিখতে ৩২ কর্মকর্তার বিদেশ সফর প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে কিশোরগঞ্জ জেলা কৃষক লীগের আনন্দ শোভাযাত্রা কিশোরগঞ্জ প্রেসক্লাব থেকে অবৈধ দখলদারদের উচ্ছেদ, দায়িত্বে জেলা প্রশাসক অপমানের বিচার না পেলে আত্মহত্যার হুমকি দুই মুক্তিযোদ্ধার কিশোরগঞ্জে কটিয়াদী পৌর আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে বাইডেনকে মানতে নারাজ ভ্লাদিমির পুতিন কিশোরগঞ্জে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ ঢাকা মহানগর পুলিশের মাদকাসক্ত ১০ পুলিশ সদস্যকে স্থায়ীভাবে চাকরীচ্যুত করা হয়েছে এক বাংলাদেশির বিরুদ্ধে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের ৫০ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণ মামলা

হারিয়ে যাচ্ছে কাক, সংরক্ষণের উদ্যোগ নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • প্রকাশিত মঙ্গলবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২০
  • ১৭৭ বার পড়া হয়েছে

আমাদের চারপাশের সবকিছুই পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে। হঠাৎ যখন খুব গভীরভাবে ভাবনার জগতে চলে যায় মন তখনই বুকের ভিতরে ও নাকের অগ্রভাগ একটি চাপ অনুভব করি আমরা। বেঁচে থাকা কি শেষ হয়ে যাচ্ছে এমন প্রশ্ন জাগে। অতীতের অনেক কিছুই যা আমরা দেখেছি তা এখন আর খুঁজেও পাওয়া যায় না। কতই মধুর সেই দেখা অতীত।

মানব সভ্যতা বিকাশের সাথে সাথে আমরা কতটা যে হিংস্র তার প্রমাণ চারপাশের পরিবেশ। উন্নত জীবনের লক্ষ্যে প্রকৃতির উপর আমাদের নিষ্ঠুরতার প্রভাব ক্রমেই বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে চারপাশের প্রকৃতিতে নেমে এসেছে শূন্যতা।

 

একটু ভেবে দেখুন, আমরা সকলেই ছোটবেলায় যে সকল পাখি, ফল, গাছ ইত্যাদি দেখেছি তাই এখন আর চারপাশে নেই। বর্তমান প্রজন্ম এর কোনো কিছুই জানেনা ও জানতেও চায় না।

 

কিছুদিন আগেও আমরা তাচ্ছিল্য করে কাউকে বলতাম কাক বা কাউয়া। কাক একটি অতি পরিচিত পাখি অর্থাৎ আমাদের পরমবন্ধু। কিন্তু আমরা কাক পাখিকে বিরক্তিকর পাখির সাথে বিবেচনা করেছি। ডাস্টবিনের ময়লা আবর্জনা তছনছ করে রাস্তা নোংরা করা, প্রয়োজনীয় জিনিস বারান্দা ও ছাদ থেকে নিয়ে যাওয়া, ঘরের পাশে কা কা উচ্চস্বরে বিরক্তিকর শব্দ ইত্যাদিতে মানুষ এই পাখিটির ওপর খুবই বিরক্তি প্রকাশ করতো। উচ্চস্বরের কা কা শব্দ থেকে মুক্তি পেতে ঘরের বাহিরে এসে কাক তাড়িয়েছে মানুষ। কিন্তু এখন আর সেই বিরক্তিকর পাখিটি মানুষকে বিরক্ত করে না। চারপাশে কোথাও দেখা যাচ্ছে না এই বিরক্তিকর পাখি কাক।‌ হয়তো অভিমানে দূরে চলে গিয়েছে। ‌

 

মানুষের কাছে বিরক্তিকর অতি পরিচিত পাখি কাক কোথায় হারিয়ে গেল? একটু গভীরভাবে ভাবলেই বিষন্ন হয়ে যায় মন। এইতো সেদিনও দেখেছি, বিরক্তিকর কন্ঠ শুনিয়েছি। কিন্তু এখন খুঁজলেও পাওয়া যাবে না।

 

একটি সময় ছিল যখন প্রতিদিন ভোর হতো কাকে ডাকে। রাত্রে সে যখন ভোরের আগমনীবার্তা আসে তখন এই কাক তার সুমধুর কন্ঠে ভোরকে আহ্বান জানায়।

 

কাক একটি অতি জনপরিচিত পাখি। অন্য সব পাখির মত কাক হয়তো অত সুন্দর না। কিন্তু কাক পরিবেশ এর ভারসাম্য রক্ষায় অনেক গুরুত্ব বহন করে। পৃথিবীর প্রায় সব দেশে কাক আছে। কাক একটি রাক্ষুসে পাখি। আমাদের পরিবেশে অনেক অবাঞ্চিত বস্তু কাক খাদ্য হিসেবে গ্রহন করে যেগুলো পরিবেশে উচ্ছিষ্ট হিসেবে আমরা ফেলে রাখি। এসকল বস্তু পরিবেশে ধূষণ সৃষ্টি করে, কাক সেগুলো আহার হিসেবে ব্যবহার করে ফলে পরিবেশে এর বিরুপ প্রতিক্রিয়া হয়না। এছাড়া কাক আবর্জনা দিয়ে বাসা তৈরী করে । সম্ভবত এজন্য কাক কে ঝাড়ুদার পাখি বলা হয়ে থাকে।

 

দুঃখজনক বিষয় হচ্ছে আজ আমাদের অবহেলায় আর আমার অত্যাচারী মন তাদের আবাসস্থল সহ নানা রকম বিষ দ্রব্য আমাদের প্রতিদিন ব্যবহারে প্রতিদিনই হারিয়ে যাচ্ছে আমাদের প্রকৃতির পরম বন্ধু এই পাখিটি। তারা আমাদের চারপাশের নানান আর্বজন খেয়ে আমাদের পরিবেশকে পরিচ্ছন্ন রাখে। কিন্তু তাদের এই আবর্জন খাবার মধ্যে প্রতিদিনই তারা নানা রকম বিষ খেয়ে মৃত্যু পথে এগিয়ে যাচ্ছে একটু একটু করে।

 

এদিকে প্রকৃতি থেকে কারণে অকারণে গাছপালা ধ্বংসের কারণে কাক তাদের আবাসস্থল হারিয়ে এখন আশ্রয় নিচ্ছে মানুষের গৃহের কোণে কিন্তু সেটিও যেন তাদের জন্য নিরপদ নয়। মানুষ কারণে ও অকারণে তাদের বিরক্ত অথবা হত্যা করে। ফলে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে আমাদের পরম এই বন্ধু কাক।

 

হতাশাজনক বিষয় হচ্ছে আমাদের বন ও পরিবেশ বিভাগ অন্য সব প্রাণী সংরক্ষণের ব্যাপারে নানা কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করে থাকলেও সেই সকল পশু পাখির তালিকায় স্থান পায়নি সুন্দর কাক পাখি। এভাবেই যদি চলতে থাকে তাহলে একদিন দেখা যাবে আমাদের ভোরের আহবানে এই পাখিটি একদিন আমাদের মাঝ থেকে হারিয়ে যাবে। যেভাবে হারিয়ে গিয়েছে অসংখ্য পাখি। একটু সচেতনতা ফিরিয়ে দিতে পারে একটি সুন্দর ভারসাম্যময় পরিবেশ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

প্রযুক্তি সহায়তায় ইন্টেল ওয়েব