1. bd24voice@hotmail.com : admi2017 :
  2. info@bd24voice.com : BD24 VOICE : BD24 VOICE
রবিবার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১, ০৩:২৩ অপরাহ্ন

ট্রাম্প সমর্থকদের নজিরবিহীন সহিংসতায় নিহত ৪ জন

  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ৮ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৫২ বার

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে গত নভেম্বরের নির্বাচনে বিজয়ী জো বাইডেনের জয়ের স্বীকৃতির প্রক্রিয়া চলার সময় ডোনাল্ড ট্রাম্পের শত শত সমর্থক পার্লামেন্ট ভবনে (ক্যাপিটল ভবন) হামলা চালিয়ে গোলাগুলি ও ভাঙচুর করেছে। এ ‌ সহিংসতায় অন্তত চারজন নিহত হয়েছে।

 

নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পের পরাজয় উল্টে দেওয়ার চেষ্টায় যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটলে স্থানীয় সময় বুধবার দুপুরের পর এই হামলা শুরু হয়।

 

আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্রের প্রতীক হিসেবে বিবেচিত ক্যাপিটল ভবন কার্যত দখল নেয় হামলাকারীরা। এক পর্যায়ে অধিবেশন মুলতবি করতে বাধ্য হয় কংগ্রেস।

 

পার্লামেন্ট ভবনে সমর্থকদের হামলা নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে গেলে ভবনে আইনপ্রণেতাদের পুলিশি নিরাপত্তায় সরিয়ে নেয়া হয় আন্ডারগ্রাউন্ড টানেলে। যৌথ অধিবেশনে সভাপতিত্ব করা ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সকেও পাহারা দিয়ে অধিবেশন কক্ষ থেকে বের নেয় পুলিশ।

 

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল ভবনের দখল নিয়ে থাকা বিক্ষোভকারীদের সরাতে টিয়ার গ্যাসের শেল ছোড়ে পুলিশ।

 

যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট ভবন ট্রাম্প সমর্থকদের দখলমুক্ত করতে পুলিশ অভিযান শুরু করে। পরের তিন ঘণ্টায় হলওয়েগুলো দিয়ে ট্রাম্প সমর্থকদের ছোটাছুটি ও বিভিন্ন দপ্তরে গিয়ে খোঁজাখুঁজি আর বিশৃঙ্খলায় এক নজিরবিহীন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

 

ট্রাম্প সমর্থকদের নজিরবিহীন সহিংসতার মধ্যে গুলিতে একজন নারী নিহত হন। পার্লামেন্ট ভবন থেকে হামলাকারীদের সরিয়ে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনার পর ওয়াশিংটন ডিসি পুলিশ আরও তিনজনের মৃত্যুর খবর জানায়।

 

ইতিহাসের লজ্জাজনক এ পরিস্থিতি বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে কারফিউ জারি করা হয়। শহরে ১৫ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা দেন ডিসির মেয়র মুরিয়েল বাউজার।

 

বার্তাসংস্থা বিবিসি জানায়, ট্রাম সমর্থকদের সহিংসতার পর পুলিশ অন্তত ৫২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে; তাদের মধ্যে ৪৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কারফিউ ভঙ্গ করার জন্য।

 

গত নভেম্বরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কয়েকমাস ধরে উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়ে বিভেদ সষ্টি করা হচ্ছিল যার চূড়ান্ত পরিণতি হিসেবে ক্যাপিটলে হামলা বলে মন্তব্য করেছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

 

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন শুরুর আগে থেকেই ভোট কারচুপির আশঙ্কা প্রকাশ করে আসছিল রিপাবলিকান সমর্থিত প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ট্রাম্প। নির্বাচন সমাপ্তা হওয়ার পর প্রকাশিত ফলাফলে কারচুপি করা হয়েছে বলে দাবি করে আসছিলে পরাজিত প্রার্থী ট্রাম্প। নির্বাচনে কারচুপি হয়েছে এমন কোন প্রমান দিতেও ব্যর্থ হয় ট্রাম্প। প্রকাশিত ফলাফলে তার পরাজয় উল্টে দিতে তাকে সাহায্য করার জন্য সমর্থকদের আহ্বান জানাচ্ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..